করোনায় বিশিষ্ট জনদের মৃত্যু মিছিল বাড়ছে।

দ্বিতীয় ধাপের সংক্রমণে প্রায় প্রতিদিনই কোন না কোন বিশিষ্ট ব্যক্তির মৃত্যুর খবর রাজনীতিবিদ সংসদ সদস্য শিক্ষাবিদ চিকিৎসক ব্যবসায়ী সাংবাদিককে নিয়েই মৃত্যুর মিছিলে নির্মমভাবে জাতির কাছ থেকে কেড়ে নিচ্ছে ।

করোনা শনাক্ত হয় গত বছরের 8 মার্চ, এর দশ দিন পর মারা যান প্রথম ব্যক্তি বৃহস্পতিবার মারা গেলেন 94 জন এ নিয়ে এক বছরে মৃত্যুর সংখ্যা ছাড়িয়ে গেলেও 10000। সিলেট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডাক্তার মঈন উদ্দিন মারা যান, গত বছরের 15 এপ্রিল এরপর একে একে দীর্ঘ হতে থাকে চিকিৎসকদের মৃত্যুর তালিকা এ পর্যন্ত করো না কেড়ে নিয়েছে 148 জন চিকিৎসক কে ।

অধ্যাপক ডাক্তার মঈন উদ্দিন

রাজনীতিবিদদের মধ্যে আছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহাম্মদ নাসিম, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন, সিলেটের সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ, কামরান সাবেক, বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী আনোয়ারুল। বিএনপি’র সাবেক মন্ত্রী শাজাহান সিরাজ সাবেক ডেপুটি স্পিকার শওকত আলী এবং সাবেক এমপি মকবুল হোসেন।

ব্যবসায়ী ও শিল্পপতিদের মধ্যে করোনায় মারা গেছেন যমুনা গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা নুরুল ইসলাম বাবুল আব্দুল মোনেম গ্রুপের চেয়ারম্যান আবদুল মোনেম। এস আলম গ্রুপের পরিচালক মোরশেদ আলম, পারটেক্স গ্রুপের চেয়ারম্যান এমএ হাসেম শিল্পের ব্যবসায়ী আজমত সহ আরো অনেকে। করোনায় মৃত্যুর মিছিলে আছে আইনজীবী অভিনেতা গতবছর বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ডঃ আনিসুজ্জামান ফারইস্ট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য ডক্টর নাজমুল করিম।

সাংবাদিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কামাল লোহানী অভিনেতা অন্যজন আলী যাকের, সংগীত শিল্পী মিতা হক এবং অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে মরণব্যাধি করোনা এবছরও প্রাণ হারিয়েছেন সাংবাদিক হাসান শাহরিয়ার পেশাজীবী। 14 এপ্রিল একই দিনে মারা গেলেন বাংলা একাডেমির সাবেক মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান ও সাবেক মন্ত্রী আবদুল মতিন খসরু। দ্বিতীয় ধাপে সংক্রমণ আরো বেশি নিষ্ঠুরভাবে অভিভাবক শূন্য করে দিচ্ছে দেশকে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *